শেষ থেকে শুরু

তুমি কি আমাকে ডিরেক্টলি বলতে পারছো না তুমি ডিভোর্স চাও!
ইফতি আমার কথা পাত্তা না দিয়ে অফিস চলে গেলো।দুপুরের জন্য আমার হাতে বানানো খাবারটাও নিয়ে গেলো না।
ইদানিং ইফতির ফোনে অন্য মেয়ের ম্যাসেজের আনাগোনা দেখতে পাচ্ছি।কালও একটা ম্যাসেজ পড়ার পরে আমার পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গিয়েছিলো।ম্যাসেজে লেখা ছিলো,তোমাদের ডিভোর্স হয়ে গেলেই আমরা বিয়ে করে নেবো।
ইফতির একটু একটু করে করা অবহেলা গুলো এখন অনেক বড় পর্যায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে।এখন আস্তে আস্তে বুঝে গিয়েছি ইফতি আর আমায় ভালোবাসে না। কোনো এক সুন্দরীর ভালোবাসায় আমার ভালোবাসা চাপা পরে গেছে।
এখন আর বই পড়তে ইচ্ছে করে না।গান শুনলে মেজাজ আরো খিটখিটে হয়ে যায়।ইফতির সাথে পুরনো ছবির এ্যালবামটা ফেলে দিয়েছি।কি লাভ পুরনো মায়ায় আটকে থেকে!!
ভাবতে ভাবতে আবিষ্কার করলাম,যে চলে যেতে চায় তাকে আটকে রেখে লাভ নেই।ধরে বেঁধে আর যাই হোক সংসার হয় না।আর হলেও সেখানে ভালোবাসার ছিটেফোঁটা ও থাকে না।
মায়ের বলা কথাটা আজ খুব মনে পড়ছে, দুষ্টু গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ঢেড় ভালো।
সব মায়া ত্যাগ করে ইফতিকে মুক্তি দিয়ে দেবো।ত্যাগে নাকি অনেক সুখ।না হয় এই ত্যাগের সুখটুকু নিয়েই বাকি জীবনটা কাটিয়ে দেবো।
বাসায় ফেরার পর অনবরত ইফতির ফোন বেজে চলেছে।কি অদ্ভুত যার জন্য সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত জেগে বসে রইলাম নাকে মুখে দুটো খেয়েই সুন্দরী প্রেমিকার সাথে ফোনালাপ করতে বেলকনিতে চলে গেলো।একবার জানতেও চাইলো না আমি খেয়েছি কিনা।
আমি আর কিছু না ভেবে ডিভোর্স পেপারে সাইন করে বেলকনিতে গিয়ে ইফতির পাশে দাঁড়ালাম।
ইফতির মুখে বিরক্তির ছাপ দেখতে পাচ্ছি।হয়তো ওরা এখন বিয়ের প্ল্যানিং করছিলো।
একরাশ বিরক্তি নিয়ে ইফতি বলল,তোমার কি কোনো ফিলিংস নেই! তুমি বুঝতে পারো না আমার তোমাকে সহ্য হয় না।তারপরেও বারবার আমার সামনে কেনো আসো!!
আমি ডিভোর্স পেপারটা ইফতির হাতে দিয়ে বললাম,তোমাকে একটা কথা বলতে এসেছি।
ইফতি অন্য দিকে মুখ ঘুরিয়ে বলল,কি?
একটা হাসি দিয়ে বললাম,Just remember when you ignoring someone,you are teaching her to live without you.
সেদিন সেই মুহুর্তে ইফতিকে মুক্তি দিয়ে চলে এসেছি।
পাঁচটা বছর কেটে গেছে।বদলে গেছে আমার জীবন,জীবনের ডেফিনেশন।একজন এসেছে আমার অন্ধকার জীবনে।অন্ধকার থেকে টেনে বের করেছে আমায়।দেখিয়েছে নতুন আলো।তার ভালোবাসায় আমি আবার বাঁচতে শিখেছি।সে কিন্তু ক্ষনিকের জন্য আসেনি।থেকে গেছে সারাজীবনের জন্য নতুন আলো হয়ে।সে শিখিয়েছে,Don’t cry for someone just smile and be patient.
ইফতির খবর পেলাম।যেই সুন্দরীর জন্য আমাকে অনবরত অবহেলা করে গেছে।সেই সুন্দরী বউ ইফতিকে ছেড়ে দিয়েছে।ইফতির চেয়ে আরো বড়লোক ছেলে বিয়ে করে সুখে আছে সে।আমিও ভালো আছি,ভালো নেই শুধু ইফতি।ইফতি আজ খুব একা।একটা কথা আছে,যে ঠকায় সেও ঠকে অপেক্ষা শুধু সময়ের।
আজ খোলা আকাশের নিচে দু হাত মেলে দাঁড়িয়ে খুব বলতে ইচ্ছে করছে….
Thanks for giving me a chance to find someone better than you.